Main Menu

কাগজ কুড়োনির মেয়ে এখন মিস থাইল্যান্ড

ছোটবেলা থেকেই দেখেছেন মাকে অসম্ভব পরিশ্রম করে তাকে বড় করে তুলতে। একলা হাতে সংসারের সব দুঃখ-কষ্টকে সরিয়ে তার মুখে হাসি ফুটিয়েছেন মা। আর তার প্রতিদান হিসাবে ‘মিস থাইল্যান্ড’ খেতাব জিতে মাকে পুরস্কৃত করলেন খানিত্থা ফাসেয়াং (১৭)।

এশিয়ার অনেক দেশেই কাছে সবচেয়ে বেশি সম্মানের হলো পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করা। আর খেতাব জিতে ঝলমলে সেই পোশাকেই হাজারো ক্যামেরার ঝলকানির মাঝে মায়ের পা ছুঁয়ে খানিত্থা যখন প্রণাম সারলেন তখন সবাই প্রায় হতবাক।

প্রতিযোগিতা জিতে মায়ের সঙ্গে খানিত্থা ফাসেয়াং গত মাসেই ‘মিস আনসেনসরড নিউজ থাইল্যান্ড, ২০১৫’ খেতাব জিতেছেন খানিত্থা। এরপরই চলে এসেছেন সোজা মায়ের কাছে যিনি আদতে কাগজকুড়োনি। নিজের হাতে ময়লা কুড়িয়ে সেই বর্জ্য পুনর্ব্যবহার করেন তিনি।

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, আগে এই কাজে বহুবার মাকে সাহায্য করেছেন খানিত্থা। তার মতে, আজ তিনি যে জায়গায় পৌঁছেছেন তা সম্ভব হয়েছে মায়ের জন্যই। হঠাৎ করেই একদিন থাইল্যান্ডের সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সুযোগ এসে যায় খানিত্থার কাছে। আর তারপর যা হলো তা স্বপ্নেও ভাবেননি তিনি। তার মতে, এসবই সম্ভব হয়েছে মায়ের আশীর্বাদের জন্য।

(Visited 1 times, 1 visits today)





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

32 − 28 =

Skip to toolbar