Main Menu

নিউজিল্যান্ডে সিরিজ হারল বাংলাদেশ

গাপটিলের সেঞ্চুরিতে হেসে খেলে ওয়ানডে সিরিজ নিশ্চিত করে ফেলল নিউজিল্যান্ড। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে মাশরাফিরা।তাতে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ তে নিশ্চিত করেছে কিউইরা।

এই জয়ে মূখ্য ভূমিকা রেখেছেন সেঞ্চুরিয়ান মার্টিন গাপটিল। প্রথম ম্যাচেও তিনি করেছিলেন অপরাজিত সেঞ্চুরি। আজ দেখা দিয়েছিলেন বিধ্বংসী রূপে। তার টর্নেডো ইনিংসে বাংলাদেশের দেওয়া ২২৭ রানের টার্গেটে ৮৩ বল বাকী রেখেই পৌঁছে যায় কেন উইলিয়ামসনের দল।

শনিবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে রান তাড়ায় নেমে ৪৫ রানের ওপেনিং জুটি গড়েন হেনরি নিকোলাস এবং মার্টিন গাপটিল। ২৩ বলে ১৪ রান করা নিকোলাসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মুস্তাফিজুর রহমান। ব্যাট হাতে বিধ্বংসী রূপে দেখা দেন মার্টিন গাপটিল। মাত্র ৩৩ বলে ৬ চার ২ ছক্কায় হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন। আগের ম্যাচের অপরাজিত সেঞ্চুরিয়ান গাপটিল আজও সেঞ্চুরি করতে ভুলেননি। ক্যারিয়ারে ১৬তম বার তিন অংকে পৌঁছতে খেলেন মাত্র ৭৬ বল; হাঁকান ১১টি চার এবং ৪টি ছক্কা।

গাপটিলকে সঙ্গ দেওয়া অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ৬৬ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন। ৮৮ বলে ১৪ চার এবং ৪ ছক্কায় ১১৮ রানের ইনিংস খেলে মুস্তাফিজের দ্বিতীয় শিকার হন গাপটিল। ভাঙে দ্বিতীয় উইকেটে ১৪৩ রানের দুর্দান্ত এক জুটি। কিউইরা তখন জয়ের দোরগোড়ায়। রস টেইলরকে নিয়ে বাকি কাজটুকু সারেন অধিনায়ক উইলিয়ামসন। কিউই অধিনায়ক অপরাজিত থাকেন ৬৫* রানে আর টেইলর করেন অপরাজিত ২১ রান।

এর আগে তীব্র বাতাস আর কনকনে ঠাণ্ডার মাঝে ক্রাইস্টচার্চে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২২৬ রানে অল-আউট হয় বাংলাদেশ। যথারীতি টপ অর্ডার ব্যর্থ। দলীয় ৫ রানে ট্রেন্ট বোল্টের বলে বিদায় নেন লিটন দাস (১)। তামিমও ওপেনিং সঙ্গীর পথে হাঁটেন। হেনরির বলে এলবিডাব্লিউ হন ২৮ বলে ৫ রান করে। তিনে নামা সৌম্য সরকার খেলেন ২৩ বলে ২২ রানের ইনিংস। মুশফিককে (২৪) বোল্ড করে দেন ফার্গুসন। আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ অ্যাস্টলের শিকার হওয়ার আগে ৭ রানের বেশি করতে পারেননি।

এই প্রতিকুল পরিবেশে সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মাঝে আবারও দলের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন। ৬৫ বলে তুলে নেন চলতি সিরিজে টানা দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি। তার ৬৯ বলে ৭ চার ১ ছক্কায় ৫৭ রানের ইনিংসটি থামে অ্যাস্টলের বলে বোল্ড হয়ে। মিঠুনের সঙ্গে ৭৫ রানের চমৎকার জুটি গড়েন সাব্বির রহমান। মূলতঃ এই জুটিতেই সম্মানজনক অবস্থানে যায় বাংলাদেশের স্কোর। দলের চাহিদা মিটিয়ে ৬৫ বলে ৪৩ রানের ইনিংস খেলেন সাব্বির। শেষদিকে মেহেদী মিরাজ (১৬), সাইফউদ্দিন (১০) এবং মাশরাফি (১৩) রান করেন। ৪৯.৪ ওভারে ২২৬ রানে অল-আউট হয় বাংলাদেশ। ফার্গুসন নিয়েছেন ৩ উইকেট।

(Visited 1 times, 1 visits today)





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

82 − 79 =

Skip to toolbar