Main Menu

মডেল ও নায়িকা সরবরাহ করত ধর্ষক নাঈম…..

বনানীতে চাঞ্চ্যলকর ধর্ষণ মামলার অন্যতম আসামি আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদের গাড়িচালক বিল্লাল হোসেনের চার দিন এবং তার দেহরক্ষী রহমতের (আবুল কালাম আজাদ) তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রিমান্ডে সাফাতের ব্যাপারে মুখ খুলতে শুরু করেছেন বিল্লাল। স্বীকার করেছেন ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণের কথা। যদিও সেই ভিডিও এখনো উদ্ধার করতে পারেনি গোয়েন্দারা।

বিল্লাল স্বীকার করেছেন, তার গাড়িতে করেই মডেল ও নায়িকা বহন করা হত। আর বিভিন্ন বাসাবাড়ি ও হোটেলে নিয়ে যেত সাফাত ও নাঈমকে। আরো কয়েকজন হাইপ্রোফাইল বন্ধু আছে সাফাত ও নাঈমের কাতারে। বিল্লাল স্বীকার করেছেন, তার গাড়িতে থাকত বিদেশি মদ ও ব্রান্ডের সিগারেট। বাসা বাড়ি ছাড়াও কোনো কোনো রাতে লংড্রাইভে যেত। চলন্ত গাড়িতে মডেল ও নায়িকাদের নিয়ে ফুর্তি করত।

২৮ মার্চ বনানীর দ্য রেইনট্রি হোটেলে আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাতের জন্মদিনের অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ করে অস্ত্রের মুখে রাতভর আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে। এ ঘটনায় গত ৬ মে বনানী থানায় ৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন ঘটনার শিকার ওই ছাত্রীরা। মামলার পাঁচ আসামি হলেন— সাফাত আহমেদ, নাঈম আশরাফ, সাদমান সাকিফ, সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও তার দেহরক্ষী আবুল কালাম আজাদ (রহমত)।

আসামিদের মধ্যে সাফাত ও সাদমান বৃহস্পতিবার রাতে সিলেট থেকে এবং সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও তার দেহরক্ষী আবুল কালাম আজাদকে (রহমত) সোমবার রাজধানী ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

(Visited 1 times, 1 visits today)





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

24 − 17 =

Skip to toolbar